মেডিকেল ইমেজিং

মেডিকেল ইমেজিং হল মানব শরীরের চিত্র তৈরির জন্য বিভিন্ন প্রযুক্তির ব্যবহার করা। মেডিকেল ইমেজিং একটি গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম যা বিভিন্ন মেডিকেল অবস্থার নির্ণয় এবং চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়।

একাধিক প্রকারের মেডিকেল ইমেজিং রয়েছে, যা নিম্নলিখিত:

এক্স-রে: একটি ঐতিহাসিক এক্স-রে শরীরের দুই মাত্রায় ছবি তৈরি করে যা হাড় ফাঁক দেখানো, ফুসফুসের সংক্রমণ এবং অন্যান্য অবস্থার নির্ণয়ে সাহায্য করতে পারে।

কম্পিউটেড টোমোগ্রাফি (সিটি): সিটি এক্স-রে এবং কম্পিউটার প্রযুক্তি ব্যবহার করে শরীরের বিস্তৃত ক্রস-সেকশনাল চিত্র তৈরি করে। সিটি স্ক্যান ক্যান্সার, রক্তপাত, এবং অভ্যন্তরীণ আঘাত সহ বিভিন্ন অবস্থা চিহ্নিত করতে পারে।

ম্যাগনেটিক রেজনেন্স ইমেজিং (এমআরআই): এমআরআই শরীরের বিস্তৃত চিত্র তৈরি করতে শক্তিশালী একটি ম্যাগনেটিক ফিল্ড এবং রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার করে। এমআরআই মস্তিষ্কের টিউমর, যৌথ আঘাত, এবং স্পাইনাল কর্ড সমস্যা সহ বিভিন্ন অবস্থা চিহ্নিত করতে পারে।

অল্ট্রাসাউন্ড: অল্ট্রাসাউন্ড উচ্চ তরঙ্গ শব্দ ব্যবহার করে শরীরের অঙ্গ এবং টিস্যুর ছবি তৈরি করে। এটি সাধারণত গর্ভবতী মহিলাদের অবস্থান নির্ধারণ এবং কিডনি স্টোন এবং গলব্লাডার রোগ সহ অবস্থা নির্ণয় করতে ব্যবহৃত হয়।

নিউক্লিয়ার মেডিসিন: নিউক্লিয়ার মেডিসিন রেডিওঅ্যাকটিভ উপাদানগুলি ব্যবহার করে শরীরের চিত্র তৈরি করে। এটি সাধারণত ক্যান্সার এবং অন্যান্য অবস্থা চিহ্নিত করতে এবং চিকিৎসা করতে ব্যবহৃত হয়।

এটি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীদের একটি সঠিক এবং কার্যকরী নির্ণয় এবং চিকিৎসা করার সুযোগ দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *